শৈলকুপায়২০ ঘন্টার ব্যবধানে আরও এক খুন

0
6

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি-

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় নির্বাচনী সহিংসতায় ২০ ঘন্টার ব্যবধানে একই ইউনিয়নে জসিম বিশ^াস(৩৫) নামের আরো এক ব্যক্তি ছুরিকাঘাতে খুনের ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার বিকাল ৪টার দিকে ৬নং সারুটিয়া ইউনিয়নের ভাটবাড়িয়া গ্রামে এ খুনের ঘটনা। এ সময় মিলন(৩২) নামে এক ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়। নিহত জসিম ভাটবাড়িয়া গ্রামে আব্দুস সাত্তার ও আহত মিলন শহিদুল ইসলামের ছেলে এবং দুজনই নৌকা প্রতীকের সমর্থক। হারান খুনের ঘটনায় খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি নজরুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে স্থান ত্যাগ করার সাথে এ খুনের ঘটনা ঘটলো।

জানা যায়, ৬নং সারুটিয়া ইউনিয়নের কাতলাগাড়ী বাজারের আধিপত্য নিয়ে শুক্রবার রাতে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা মার্কার প্রার্থী মাহমুদুল হাসান মামুন ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী জুলফিকার কায়সার টিপুর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে হারান মন্ডল নামের এক বৃদ্ধ নিহত হয়। এ খুনের ২০ ঘন্টা যেতে না যেতেই প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে নিহত হলো জসিম বিশ^াস নামের আরো এক ব্যক্তি।

নিহত জসিমের ভাই মুক্তার হোসেন জানান, তার ভাই জসিম ও মিলন রাস্তায় দাড়িয়ে ছিল। এ সময় চেয়ারম্যান প্রার্থী আনারস মার্কার জুলফিকার কায়সার টিপুর সমর্থকরা তার ভাইদের ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। সাথে সাথে তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে চিকিৎসক জসিম বিশ^াসকে মৃত ঘোষনা করেন এবং মিলনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়।

নৌকা মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহমুদুল হাসান মামুন জানান, সন্ত্রাসী হামলায় নিহত জসিম ও আহত মিলন তার সমর্থক।
এ ঘটনায় আনাসর মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী জুলফিকার কায়সার টিপুর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: রফিকুল ইসলাম বলেন, ভাটবাড়িয়া গ্রামে ছুরিকাঘাতে জসিম নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আক্রমনকারীকে পুলিশ আটক করতে সক্ষম হয়েছে বলে জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here