মেয়েকে নির্যাতনের অভিযোগে জামাই শিকলবন্দী

0
8

আমার নিউজ ডেক্স: মেয়েকে নির্যাতনের অভিযোগে জামাইকে শিকলবন্দী করেছে শ্বশুর বাড়ির লোকজন। এই ঘটনাই জামাইকে শিকলবন্দী করে রাখার অভিযোগ উঠেছে শ্বশুর বাড়ির লোকজনের ওপর। ঘটনাটি ঘটেছে চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার হেলিপ্যাড পাড়ায়। শিকলবন্দী জামাই ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার শ্যামকুড় গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে সোহরাব হোসেন (৩০)। এদিকে জামাইকে শিকল দিয়ে বেঁধে রাখার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তুমুল সমালোচনা শুরু হয়। এ ঘটনায় জীবননগর থানা-পুলিশ সোমবার রাতে অভিযান চালিয়ে স্ত্রী নীলা, শাশুড়ি মেহেরযান ও মামা শ্বশুর মোসলেম উদ্দীনকে আটক করেছে।

স্থানীয়রা জানায়, রোববার রাতে হেলিপ্যাড পাড়ার হারেজ উদ্দীনের বাড়িতে তার মেয়ের জামাই সোহরাব হোসেন বেড়াতে আসলে তাদের মধ্যে উত্তপ্ত কথাবার্তা শুরু হয়। একপর্যায়ে জামাইকে শিকলবন্দী করে বাড়ির উঠানে মাচাতে শুইয়ে রাখা হয়। সকালে বেঁধে রাখা হয় গাছের সাথে। সারাদিন এভাবেই রাখা হয় তাকে।

শিকলবন্দী সোহরাব জানায়, গত ৮-১০ দিন আগে মোবাইলে টাকা ভরাকে কেন্দ্র করে কথা-কাটাকাটি হয় স্ত্রী নিলার সাথে। একপর্যায়ে আমি আমার স্ত্রী নিলাকে আঘাত করি। তারপর সে আমার উপর রাগ করে কন্যাকে নিয়ে বাবার বাড়ি জীবননগরে চলে আসে। আমি রোববার সন্ধ্যায় আমার স্ত্রী ও সন্তানকে ঈদের জামা কাপড় দিতে আসলে আমার শ্বশুর বাড়ির লোকজন প্রথমে মারপিট করে। পরে আমাকে লোহার শিকল দিয়ে গাছের সাথে তালাবদ্ধ করে রাখে।

স্ত্রী নিলা জানায়, ৭-৮ বছর আগে সোহরাব হোসেনর সাথে উভয় পরিবারের সম্মতিতে বিয়ে হয়। তাদের দাম্পত্য জীবনের একটি কন্যা সন্তান আছে। তার দাবি বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই স্বামী তাকে নানা অজুহাতে মারপিট করতে শুরু করে। ইতিমধ্যে যৌতুক বাবদ কয়েক দফায় সোহরাবকে পাঁচ লক্ষ টাকা দেওয়া হয়েছে। তারপরও স্বামীর সংসারে সুখী হতে পারিনি। কয়েক দিন আগে মোবাইলে ১০ টাকা ভরার অপরাধে আমাকে মারপিট করে হাত ভেঙে দিয়েছে।

শ্বশুর হারেজ উদ্দীন জানান, আমার মেয়েকে মারপিট করার কারণে জামাই সোহরাব হোসেনকে শিকল দিয়ে তালা বদ্ধ করে রেখেছি। তার বাবা-মা আসলে আমরা তাকে তাদের হাতে তুলে দেবো। এদিকে, শ্বশুর বাড়িতে জামাইকে শিকলবন্দী করে রাখার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে দৃশ্যটি দেখতে উৎসুক জনতার ভিড় জমতে শুরু করে। দিনভর বিভিন্ন এলাকার লোকজন জামাইকে বেঁধে রাখার দৃশ্য দেখতে আসে।

জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ গণি মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শ্বশুর বাড়িতে জামাইকে নির্যাতন ও শিকল দিয়ে বেঁধে রাখার ঘটনায় সোমবার রাতে অভিযান চালিয়ে স্ত্রী নীলা খাতুন, শাশুড়ি মেহেরযান বেগম ও মামা শ্বশুর মোসলেম উদ্দীনকে আটক করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here